চারিদিকে ধুঁ ধুঁ প্রান্তর। যতদুর চোখ যায় শুধু বালি আর বালি। কোথাও কোন জনমানবের চিহ্ন নেই, চিহ্ন নেই গাছ-গাছালি, পাখ-পাখালির।

এরই মাঝে আনমনা হয়ে এক পথহারা, কাফেলাচ্যুত পথিক হাঁটছে। সে তার বাণিজ্য কাফেলা থেকে বিচ্যুত হয়ে এখন অসহায় অবস্থায় সময় অতিক্রম করছে। সে জানেনা কোন দিকে তার গন্তব্য। তবুও তার তো বাঁচার আশা ফুরায়নি, তাই দিগ্বিদিক ছুঁটে চলছে।

এভাবে কয়েক দিন যেতে না যেতেই ক্ষুধায় তার প্রাণ বের হওয়ার উপক্রম, চোখ দুটি যেন কোটরের মধ্যে গেঁথে যাচ্ছে, পা আর চলে না, তার আশার বাতি নিভূ নিভূ করছে, দু’চোখে যেন সরষে ফুল দেখছে। সর্বদিক মিলিয়ে তার কাছে মনে হচ্ছে, সে এক বিশাল গোলকধাঁধায় আটকে আছে।

পথহারা পথিকের এহেন সংকটপূর্ণ মুহূর্তে যদি কেউ এসে তাকে সঠিক পথের দিশা দেয়, সাথে দেয় কিছু খাদ্য পানীয়, ও একবুক উৎসাহ, তবে তার মনে তখন যে পরিমাণ আনন্দের স্রোত ঝড়ো গতিতে বহমান হবে, তাতে তার দুঃখ, হতাশা এবং বিপদের হাওয়া শ্লথ হতে হতে বিদূরিত হবে।

তেমনি একজন মুমিন যদি হতে পারে তার সবচেয়ে প্রিয়তম আল্লাহ ও তার রাসূলের মেহমান, তবে তার মনে সেই আনন্দধারা বহমান হতে একটুও কি ভুল হবে?

প্রিয়তমের নিকট গেলে এমনিতেই তো হৃদয়ে বান ডেকে যায়। হৃদয়ের লু হাওয়া নিমেষেই হয়ে যায় শীতল। মক্কা-মদিনা প্রত্যেক মুমিন হৃদয়ের কামনা-বাসনা।

কত বান্দা হারামাইনের ঝলক এক পলক দেখেই হয়ে যায় বিমোহিত। আবেগে, ভালবাসায় দু’গন্ড দিয়ে আনন্দাশ্রু উপচেঁ পড়ে। আবার কেউ নিজ দেশে বসে গুঙ্গিয়ে গুঙ্গিয়ে কেঁদে মরে, বিরহ জালায় পুড়ে হয় ভষ্মীভূত।

প্রিয় নবীজী বলেছেন-
“মান মাতা ফি আহাদিল হারমাইনি বায়াছাহুল্লহু আমিনিনা ইয়াওমাল কিয়ামাহ”

অর্থাৎ, যে ব্যাক্তি হারামাইনের মাঝে মাঁরা যাবে তাকে কিয়ামাতের দিন আল্লাহ পাক নিরাপদ হিসাবে উঠাবেন।

মদিনায় যাতে মৃত্যু হয় সে জন্যে ইমাম মালেক রহ. কত কিছুই না করেছেন, অন্যখানে মৃত্যু হয় কিনা সেই ভয়ে কখনো মদিনা থেকে বের হতেন না।

অপর দিকে হযরত ওমর (রা.) দোয়া করতেন
“আল্লাহুম্মার যুকনি শাহাদাতান ফি সাবিলিক ওয়াজয়াল মাওতি ফি বালাদি রাসূলিক”

অর্থ: হে আল্লাহ আমাকে শাহাদাতের মৃত্যু দান করুন এবং আমার মৃত্যু আপনার নবীজীর দেশে দিন।

মদিনার ধুলো-বালিতেও মুমিনের জন্য রয়েছে শিফা। যদি কেউ বিরোধিতা করতে চায় তবে তার জন্য বলি “প্রেমিক তার প্রেমাষ্পদের সব কিছুতেই সুখ খুঁজে পায়”।

যারা যাচ্ছেন সেই সোনার দেশে তাদের পুলকিত হৃদয়কে বলি, আমাদের মত অভাগাদের ভষ্মীভূত হৃদয়ের জন্যে দোয়া করবেন যাতে আমরাও ঐ সোনালী দেশে যাওয়ার সুযোগ পেয়ে সোনালী মানুষে পরিণত হতে পারি।

আঁখির জল যেন শুধু বাংলার জমিনকেই সিক্ত না করে মক্কা-মদিনার ভূমিকেও করতে পারে সিক্ত, এ আশাই করলাম ব্যক্ত।

আল্লাহ আমাদের আপনার ভালবাসায় সিক্ত করঃত আপনার ও নবীজীর মেহমান হিসেবে কবুল করুন। আমীন….

লিখেছেনঃ
মোঃ রাকিব

দ্বীনি কথা শেয়ার করে আপনিও ইসলাম প্রচারে অংশগ্রহণ করুন।